সোভিয়েতস্কি কৌতুকভ

ussrছোটবেলা থেকে যে দেশটির প্রতি আমি প্রচন্ড আকর্ষণ ফিল করতাম সেই দেশটি হলো সোভিয়েত ইউনিয়ন। দেশটির ইতিহাস, সমাজতন্ত্র, মহাশূন্যে প্রথম রকেট পাঠানো,বেকারত্ব, পতিতাবৃত্তি, ভিক্ষাবৃত্তিকে জয় করা আর বিশেষত আমাদের মুক্তিযুদ্ধে দেশটির অবদান,দেশটির প্রতি আমার আগ্রহ সেই ছোটবেলাতেই বাড়িয়ে দিয়েছিল।
সুপার পাওয়ার সোভিয়েত ইউনিয়ন এখন আর নেই…। সেই সোভিয়েত ইউনিয়নে প্রচলিত কিছু কৌতুক নিয়ে মাসুদ মাহমুদের “সোভিয়তস্কি কৌতুকভ” থেকে কিছু কৌতুক শেয়ার করছি— খুবই মজাদার তাদের কৌতুকগুলো, কিছু আছে একুটু Adult ঘরানার, কিন্ত হাস্যরসে অসাম। পড়ে দেখুন কেমন লাগে

ছারপোকার সাইজ চ্যাপ্টা কেন?
–আমরা তাদের উপরে শুয়ে থাকি বলে।

বহুবিবাহের খারাপ দিক কোনটি?
— বহুশাশুড়ির ব্যাপারটি।

শাশুড়ির জন্মদিনে গত বছর চেয়ার উপহার দিলে এ বছর কী দেওয়া উচিত?
— চেয়ারে ইলেকট্রিসিটি দেয়ার ব্যবস্থা করা

শাশুড়ির ওপরে বাঘ ঝাঁপিয়ে পড়লে কী করা উচিত?
–নিজে ঝাঁপিয়ে পড়েছে, নিজেই বুঝুক ঠ্যালা

কুৎসিত কিন্তু বিশ্বস্ত স্ত্রী এবং সুন্দরী কিন্তু অবিশ্বস্ত স্ত্রী –কোনটি ভালো?
–একা একা বিষ্ঠা খাওয়ার চেয়ে সবাই মিলে মিষ্টি খাওয়া ভালো।

শুধু বেতনের টাকায় কি চলা সম্ভব?
–জানিনা, চেষ্টা করে দেখিনি।

একেবারে শহরের কেন্দ্রে কোনো মেয়ের সাথে যৌনমিলনে লিপ্ত হওয়া কি সম্ভব?
–না, কারণ অন্যদের উপদেশের ঠেলায় কান ঝালাপালা হয়ে যাবে।

মোরগ যখন মুরগিকে তাড়া করে, মুরগি তখন কী ভাবে?
— খুব বেশী জোরে দৌড়াচ্ছি না তো?

কোনো মেয়ে কি কোনো পুরুষকে লাখপতি বানাতে পারে?
— পারে, যদি পুরুষটি হয় কোটিপতি।

মুরগির স্তন নেই কেন?
— মোরগের হাত নেই বলে।

ধূমপান ত্যাগের উপায় কি?
–সিগারেট খাবার ইচ্ছে হলে সিগারেটের দুপ্রান্তেই আগুন ধরাতে হবে।

বেতন কী?
–বেতন হলো মেয়েদের ঋতুস্রাবের মত, অপেক্ষা করতে হয় সারাটি মাস, তারপর তিনদিনেই শেষ।

বস এবং অধীনস্থ কর্মচারীর মত বিনিময় বলতে কী বোঝায়?
— অধীনস্থ কর্মচারী বসের ঘরে ঢোকে নিজের মত নিয়ে এবং বেরিয়ে আসে বসের মত নিয়ে।

কখন গোটা বিশ্বজুড়ে দুর্ভিক্ষ হবে?
–চীন দেশের লোকেরা যেদিন কাঠি ছেড়ে কাটা চামচ দিয়ে খাওয়া আরম্ভ করবে।

ইভ কি অ্যাডাম ছাড়া আর কারো সঙ্গে শুয়েছিল?
–তা সঠিক জানা যায়না, তবে মানুষের উৎপত্তি বানর থেকে, এটা প্রমানিত সত্য।

আণবিক বিস্ফোরণের পরে কি টয়লেটে যাওয়া সম্ভব?
— সম্ভব, যদি পশ্চাদ্দেশ অক্ষত থাকে।

** মোরগ ভর্তি হতে এসেছে সঙ্গীত বিদ্যালয়ে, শিক্ষক দোয়েল তাকে জিজ্ঞেস করলো–
“তুমি তো এমনিতেই সুন্দর গাইতে পারো, তোমার তো সঙ্গীত বিদ্যালয়ে ভর্তির কোন কারন-ই দেখিনা আমি।
মোরগ বলল- আমারো তো একই কথা, কিন্ত কি করবো? মুরগীরা এখন ডিগ্রী ছাড়া পাত্তাই দিচ্ছেনা।

** বনের ভেতর দিয়ে হেঁটে যাচ্ছে ভাল্লুক, পথের পাশে গাভী যাবর কাটছে শুয়ে শুয়ে। দুহাতের পেশী ফুলিয়ে গাভীকে দেখিয়ে ভালুক বললো,
“দেখ আমি আর্নল্ড শোয়াজনেগার”
গাভী তাকিয়ে দেখলো, কিন্ত নির্বিকার। ভালুকটি তার হাতের পেশী আরো ফুলিয়ে বললোঃ
“আরে বাবা ভালো করে তাকিয়ে দেখ, আমি আর্নল্ড শোয়াজনেগার”
উঠে দাড়ালো গাভীটি। তারপর লেজ দিয়ে নিজের ভরাট স্তন স্পর্শ করে ভালুকটিকে দেখিয়ে বললোঃ
“দেখ আমি সামান্থা ফক্স”

**বেড়ালকে দেখে খিকখিক করে হাসতে হাসতে গাভী বললোঃ
–অ্যাত্তোটুকুন তুই, অথচ গোঁফ উঠে গেছে, লজ্জা করে না তোর?
বেড়াল বিন্দু মাত্র না ভড়কে উত্তর দিলোঃ
–আর তুই, ধাড়ি কোথাকার! ব্রেসিয়ার না পরে ঘুরে বেড়াচ্ছিস।

** মরুভূমিতে দৌড়াচ্ছে এক কুকুর আর ভাবছেঃ
-আর একমিনিটের মধ্যে কোনো গাছ খুঁজে না পেলে এমনিই প্রস্রাব হয়ে যাবে।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: