কৌটিল্য/চাণক্যের নীতিশাস্ত্র-৩

chanakya_artistic_depiction২য় পর্ব
** স্বর্ণের শুদ্ধতা যেমন ঘষামাজা, কাটাকাটি, উত্তপ্ততা এবং আঘাতের মাধ্যমে অর্থাৎ এই চারটি পদ্ধতিতে পরীক্ষা করা যায়, তেমনি একজন মানুষকেও শুদ্ধাচারণ, ব্যবহার, গুণাগুণ এবং কার্যকলাপ; এই চারটি পদ্ধতিতে পরিমাপ বা পরীক্ষা করা উচিৎ

** যে ব্যক্তি স্বর্গের পথে যেতে চায় তার জন্য প্রয়োজন হলো; কথার পবিত্রতা, মনের পরিশুদ্ধতা, ভাবনার শুদ্ধতা এবং একটি সংবেদনশীল হৃদয়।

** নিম্ন শ্রেণির লোকেরা প্রত্যাশা করে সম্পদ। মধ্যবিত্তেরা সম্পদ এবং সম্মান দুটোই প্রত্যাশা করেন। কিন্ত সম্ভ্রান্ত লোকেরা শুধু সম্মানই প্রত্যাশা করেন। বস্তত সম্মান, মর্যাদাই হলো সম্ভ্রান্ত মানুষের সম্পদ।

**বারংবার যে বিষয়গুলো বিবেচনা করতে হবে তা হলো; সঠিক সময়, সঠিক বন্ধু, সঠিক স্থান, উপার্জনের সঠিক উপায়, সঠিক পদ্ধতিতে ব্যয় এবং ক্ষমতা অর্জনের প্রকৃত উৎস।

**অনুশীলনের মাধ্যমে শিক্ষণ কার্যকর থাকে। সদাচরণের মাধ্যমে পারিবারিক মর্যাদা অক্ষুণ্ন থাকে। সম্মানিত ব্যক্তিগণ তাদের গুণাবলীর উৎকর্ষতার কারণে পরিচিতি পেয়ে থাকেন এবং ক্রোধের বহিঃপ্রকাশ পরিদৃষ্ট হয় চোখে।

** পরোপকারের সুবাদে দারিদ্র্য দূরীভূত হয়, ন্যায়নিষ্ঠতার সাহায্যে দুঃখ যাতনার অবসান ঘটে, বিচক্ষণতার মাধ্যমে অজ্ঞানতা এবং পুঙ্খানুপুঙ্খ পরীক্ষণের মাধ্যমে কোনো বিষয় সম্পর্কিত ভীতি দূরীভূত হয়।

** কামুকতার মতো ধ্বংসাত্মক কোনো মারাত্মক ব্যাধি নেই। মোহগ্রস্থতার মতো বৃহৎ কোনো শত্রু নেই। ক্রোধের মতো ভয়াবহ কোনো অগ্নি নেই।

** দরিদ্ররা প্রত্যাশা করে ধন সম্পদ, পশুপ্রাণিরা প্রত্যাশা করে কথা বলার সক্ষমতা, সাধারণ মানুষেরা প্রত্যাশা করে স্বর্গারোহন এবং ধার্মিক মানুষের প্রত্যাশা আত্মশুদ্ধি।

** একজন লোভার্ত মানুষকে উপহার সামগ্রী দিয়ে শুভেচ্ছা জানাবে, একজন একগুয়ে গোঁয়ারকে করজোড়ে প্রণাম করে শুভেচ্ছা জানাবে, একজন নির্বোধ মুর্খকে হাস্যকরভাবে এবং সুশিক্ষিত মানুষকে সত্য কথার মাধ্যমে শুভেচ্ছা জানাবে।

** যে ব্যক্তি আর্থিক লেনদেনের সময়, জ্ঞানার্জনের সময়, খাদ্যগ্রহণের সময় এবং কাজ কর্মের সময় কোন সংকোচ বোধ করবেনা সে ব্যক্তি সুখি হবে।

** মানুষের সাথে অকপটে সহজ সরল লেনদেন করবেনা, অরণ্যে চলাচলের সময় দেখবে বাঁকা গাছগুলো দাঁড়িয়ে আছে আর সোজা গাছগুলো রান্নার জ্বালানি কাঠ হিসেবে ব্যবহারের জন্য কর্তন করা হয়েছে।

** যেসব কারণে নরকের নানা দিক এই পার্থিব জগতেও পরিদৃষ্ট হতে পারে তা হলো; ভয়ানক ক্রোধ, কটূ বাক্য, শত্রুতা, কদর্য লোকের সাহচর্য, অপদার্থ ব্যক্তিকে সেবা প্রদান।

তথ্যসূত্রঃ এবং কৌটিল্যের নীতিশাস্ত্র – মানিক মোহাম্মদ রাজ্জাক

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: