কৌটিল্য/চাণক্যের নীতিশাস্ত্র-৪

chanakya_artistic_depiction৩য় পর্ব
** দরিদ্র পরিবারে/নীচ কুলে জন্মগ্রহন করেও যদি কেউ শিক্ষা গ্রহণে সক্ষম হয় তাহলে সে সম্মানিত হতে পারে এমনকি দেবতার আসনেও আসীন হতে পারে।

**একজন সুশিক্ষিত ব্যক্তি জনগণের দ্বারা সম্মানিত হয়ে থাকেন। সুশিক্ষার কারণে একজন শিক্ষিত মানুষের নির্দেশনা সর্বত্র সমাদৃত হয়ে থাকে। বস্তত শিক্ষা সর্বত্রই সমাদর লাভ করে।

** সকল ধরনের বৈষয়িক সুখের মধ্যে সুস্বাদু খাদ্যই সর্বোৎকৃষ্ট। শরীরের সমস্ত অঙ্গ প্রত্যঙ্গের মধ্যে চোখই হলো সর্বশ্রেষ্ঠ আর শরীরের সমস্ত অংশের মধ্যে সেরা আসনটি দখল করে আছে মস্তিষ্ক।

** নিয়মিত চর্চা না করলে জ্ঞান অবলুপ্ত হয়ে যায়। অজ্ঞানতার কারণে একজন মানুষ বিলুপ্ত হয়ে যায়। সেনাধ্যক্ষ ছাড়া একজন সৈনিক বিলুপ্ত হয়ে যায়।

**বৃদ্ধ বয়সে স্ত্রীর মৃত্যু হলে, আত্মীয় পরিজনকে ধার হিসেবে অর্থ প্রদান করলে এবং খাদ্যের জন্য অন্যের উপর নির্ভরশীল হলে একজন লোকের জীবনে বিপর্যয় নেমে আসে।

** ভারসাম্যপূর্ণ মনের ন্যায় কোন সংযম নেই। আত্মসন্তুষ্টির সমতুল্য কোনো সুখ নেই। লালসার চেয়ে বড় কোনো রোগ নেই এবং ক্ষমাশীলতার সমার্থক কোন গুন নেই।

**জ্ঞান হলো কামধেনু যে সারাজীবন দুগ্ধ প্রদান করে থাকে এবং পরিতৃপ্তি হলো ইন্দ্রের বাগিচা বা নন্দন কানন। আর ক্রোধ হলো যমরাজের মূর্তিস্বরূপ।

** সদ বা ভালো বংশে জন্মের বহিঃপ্রকাশ হলো ন্যায়পরায়ণ আচরণ। নৈতিক উৎকর্ষতা হলো ব্যক্তিগত সৌন্দর্যের অলংকার। মন্দ আচরণের কারণে সদবংশে জন্মগ্রহণ অর্থহীন হয়ে যায়।

** একটি সাপ নির্বিষ হওয়া সত্ত্বেও ফণা তুলে যে আতঙ্কের উদ্রেক করে, মানুষকে ভীত সন্ত্রস্ত করার জন্য ওটুকু যথেষ্ট। এক্ষেত্রে তার মধ্যে বিষ আছে কি নেই তা বিবেচ্য নয়।

**কোন ব্যক্তির সম্পদ না থাকলেও সে নিঃস্ব হয়ে যায়না। যদি শিক্ষিত হয় তবে সে ধনবানই থেকে যায়। কিন্ত মানুষের মধ্যে শিক্ষা না থাকলে সে সকল ক্ষেত্রে নিঃস্ব হয়ে যায়।

** মালয় পাহাড়ে একই সাথে বেড়ে উঠলেও বাঁশ যেমন চন্দন কাঠের গুণাবলী অর্জন করতে পারেনা, ঠিক তেমনি শূন্য মস্তিষ্কসম্পন্ন লোকেরা নির্দেশনা পেয়েও লাভবান হননা।

** আগুনে পুড়িয়ে সুরা পাত্রের সমস্ত সুরা বাষ্পীভবনের মাধ্যমে নিঃশেষিত করলেও যেমন সুরাপাত্র বিশুদ্ধ হয়না, তেমনি পবিত্র পানি দিয়ে শতবার ধোলাই করলেও নোংরা মন কখনো নিষ্কলুষ হয়না।

** নিম গাছের গোড়ায় যতই দুধ এবং ঘি ঢালা হোকনা কেন নিম কখনো মিষ্টি হয়না, ঠিক তেমনি বিভিন্নভাবে বিভিন্ন পদ্ধতিতে উপদেশ প্রদান করা হলেও মন্দ মানুষ কখনো পাপমুক্ত হয়না।

তথ্যসূত্রঃ এবং কৌটিল্যের নীতিশাস্ত্র – মানিক মোহাম্মদ রাজ্জাক

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: