একান্ত ভাবনা

পানি ট্যাক্স ও আন-এথিক্যাল প্র্যাকটিস

ekanto-vabna“ভাই কোন আইটেমের কত দাম?” এই প্রশ্নটি যারা হোটেলে খান তাদের ৯৫% -ই বেয়ারাদের জিজ্ঞেস করেন বলে মনে হয়না ।

আর এই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে হোটেল্গুলো খাবারের দামের সাথে অতিরিক্ত ২টাকা করে পানির দাম আদায় করছে যা আপনি খেয়ালও করছেন না। আপনি পানি খান কিংবা না খান, আপনার এই অজ্ঞতার সুযোগ কাজে লাগানো হচ্ছে। যখন বলি “আমি তো পানি খাইনি” তখন তারা সেই টাকা বাদ দিচ্ছে।

Continue reading “পানি ট্যাক্স ও আন-এথিক্যাল প্র্যাকটিস”

একান্ত ভাবনা

প্রজ্ঞা, আদর্শ, ভক্তি ও সততা

proggaপ্রজ্ঞাহীন অতি ভক্তি, সততা আর আদর্শ “সততা রোগ”, “আদর্শ রোগ” আর “ভক্তিরোগ” সৃষ্টি করে। আমরা এই রোগগুলোতে আক্রান্ত যা ভয়াবহ। “কেন?”,”কেন?” আর “কেন?” —– আমাদের শিক্ষা যতদিন ছোটবেলা হতে মনের মধ্যে অনুসন্ধিৎসু এই “কেন?” প্রশ্ন জাগাতে না পারছে ততদিন বুদ্ধির মুক্তি বা প্রজ্ঞার বিকাশ অসম্ভব।
উদ্ভট উটের পিঠে চলছে স্বদেশ।

একান্ত ভাবনা

ছোটদের কথা-২

ekanto-vabnaছেলেটির বয়স কতই বা হবে ৫ কি ৬।সাথে তার ছোট বোন। আমাদের বাসায় বেড়াতে এসেছে তার আব্বা আম্মার সাথে। আমি ল্যাপটপে কাজ করছিলাম। সে আর তার ছোট বোন খুব কৌতুহলী চোখে আমার ল্যাপটপটিকে দেখছে। বাচ্চাদের মধ্যে এই কৌতূহল আমার বেশ লাগে। জানার কৌতূহল থেকে জাগে জিজ্ঞাসা, জিজ্ঞাসা থেকে আসে চিন্তা, চিন্তা থেকে বাড়ে জ্ঞান, জ্ঞান থেকে বাড়ে প্রজ্ঞা বা উপলব্ধি।

Continue reading “ছোটদের কথা-২”

একান্ত ভাবনা

ছোটদের কথা

ekanto-vabnaরোজকার মতো সন্ধ্যা ৬.৩৫ দিকে বাস আমাদের নামিয়ে দিল। বাস থেকে নেমে আমার রুমের দিকে যাচ্ছি। খেয়াল করলাম একটি বাচ্চা ছেলে (বয়স ৮ কি ১০ হবে) খেলাচ্ছলে পাথর কুড়িয়ে নিয়ে একটি কুকুরকে সেটি মারছে। প্রথমটা গায়ে লাগেনি, কিন্ত অবস্থা বুঝে কুকুরটি দৌড়ে দূরে সরে গেল। আমি ছেলেটিকে খেয়াল করছিলাম, আশেপাশে বয়স্ক যারা আছেন তাদেরও দেখলাম, কেও কিছু বলছেনা।

Continue reading “ছোটদের কথা”

একান্ত ভাবনা

শিক্ষা ও মর্যাদা

ছোটবেলা হইতে পিতা মাতার কাছ হইতে “লেখাপড়া করে যে গাড়ি ঘোড়া চড়ে সে” শুনিয়া শুনিয়া আমার মস্তিষ্ক নামক বস্তুটিতে লেখাপড়া না করিলে যে আমি অর্থ উপার্জন করিতে পারিবনা আর তা না হইলে আমার যে গরীবের হাল হইবে তা ভালোই বুঝিয়াছিলাম।
বিবেক আর মর্যাদাবোধ আমার অল্পবিস্তর জাগ্রত হইয়াছে বাট তাহা অর্থের নিকট কিছুই নয়। গত প্রায় ২৪ বছর যাবত লেখাপড়া করিয়া ৪০ হাজার টাকা সেলারী পাইয়া আমি সন্তুষ্ট হইয়াছি। সামান্য সুযোগ সুবিধা বা অর্থ লাভের জন্য কিভাবে অন্যকে লেং মারিতে হয় তাহা আমার আয়ত্ত্ব হইতাছে। কলিগের নামে উপর মহলে মিথ্যা অভিযোগ জানাইতে শিখিয়াছি, কারণ উপরে উঠিতে হইলে তাহা একান্ত আবশ্যক।পাঁচ মিনিটের কাজ কিভাবে ৩০মিনিটে করিতে হয় তাহা আমার নখদর্পনে—সময়মত কাজ করিলে যে বস আরো কাজ চাপাইবেন। উপরি ইনকামের জন্য স্পীড মানি নিতে আমার বেশ লাগে, যখন স্পীড মানি হাতে আসে, খুব খুশি লাগে, মনে মনে ভাবি
হে পরমপূজনীয় পিতামাতা তোমাদের শিক্ষা আমি প্রোপারলি কাজে লাগাইতে পারিয়াছি। আমার জীবন সার্থক।

— যদি ভুল করিয়া না থাকি তাহলে মেজরিটি বাংগালীরা এমন-ই মনমানসিকতা ধারন ও লালন করেন।

যে জাতি/মানুষ টাকা পয়সার সাথে লেখাপড়ার সম্পর্ক শিশুকে শিক্ষা দেয় সেই জাতির / শিশুর মেরুদন্ড/মর্যাদাবোধ বিকশিত হবার কথা না।
যে জাতি জ্বীন,ভুত, বিড়াল, তেলাপোকার ভয় দেখিয়ে শিশুকে ঘুম পাড়ায়, আর যাহাই হোক সেই জাতি/শিশুর সাহসিকতা বিকাশ লাভ করেনা,অন্যায়ের প্রতিবাদ সে করিতে শিখেনা—

একান্ত ভাবনা

অমর বাণী

১। মন যেমন হয় কথাও তেমনি হয়ে থাকে। কথা যেমন হয়ে থাকে কাজ ও হয় তেমনি। মহাত্মাদের মন, কথা ও কাজ একই রকম হয়ে থাকে।
২। সূর্যকে উদয়ের সময় লাল দেখায় আবার অস্তের সময়ও লাল দেখায়। মহাত্মারা সম্পদের সময় ও বিপদের সময় একই রকম থাকেন।
৩। মহাত্মাদের মন, কথা ও কাজে মিল থাকে কিন্ত দুরাত্মাদের ওসবে কোন মিল থাকেনা।
৪। সর্প বায়ু সেবন করে দুর্বল হয়না, জঙ্গলী হাতী ঘাস খেয়েও বলশালী, মুণি গণ কন্দ,মূল ও ফল খেয়েও নিজেদের জীবন নির্বাহ করে; তাই মানুষের কাছে সন্তোষই সর্বাপেক্ষা বড় জিনিস
৫। উত্তম ব্যক্তি প্রশংসা পেয়ে সন্তোষ প্রকাশ করে, নীচ ব্যক্তি ধন পেয়ে খুশী হয়, প্রার্থনা পেয়ে দেবতা প্রসন্ন হন, কিন্ত ভূত বলি দিলে খুশী হন।
৬। দানশীলতা, প্রিয়ভাষণ, ধৈর্য এবং ঔচিত্য এই গুণাবলী মানুষের স্বাভাবিক ভাবেই প্রাপ্ত হওয়ার কথা, অভ্যাসের দ্বারা প্রাপ্ত হওয়ার নয়।

একান্ত ভাবনা

আমি ভদ্রলোক

10307400_10153863110987682_4693907791830443362_nগুনীজনে কহেন “ভদ্রলোক আর মাকাল ফল প্রায় সেইম কিসিমের” আই মিন, মাকাল ফল যেমন কাজের না, ঠিক তেমনি ভদ্রলোকদের দিয়ে জগতের বা সমাজের কল্যানকর মুভমেন্ট হয়না।
কর্মসূত্রে আমি সেন্ট্রাল ব্যাংকে “সহকারী পরিচালক” পদে অধিষ্ঠিত, সেই সাথে বলিতে হয় আমরা নিতান্তই ভদ্রলোক, আমার অফিসিয়াল গুরুদেব কহেন “বৎস তুমি নিরেট ভদ্রলোক তাই তুমি গু__ মারা খাইবা”

Continue reading “আমি ভদ্রলোক”

একান্ত ভাবনা

শক্তি, সাফল্য ও সিদ্ধান্ত

Chanakya_artistic_depictionএ পি জি আব্দুল কালামকে তাঁর ক্ষেপনাস্র তৈরীর দিনগুলিতে জিজ্ঞেস করা হয়েছিল, যে কেন তিনি এই সব প্রাণঘাতি অস্র তৈরী করছেন।
তিনি উত্তর দিয়েছিলেন, “কেবলমাত্র এক শক্তি অপর শক্তিকে সম্ভ্রম দেখায়।”

চাণক্যের মতে “গুপ্ত সংযোজকের ক্ষেত্রে, যদি সেই বিষয়টি শেষ পর্যন্ত গুপ্তই থেকে যায় তবেই সাফল্য আসে”
— নিজের সাফল্যের রহস্য বা পরিকল্পনা সেটি পড়ালেখার ক্ষেত্রে হোক কিংবা ব্যাবসা সেই ব্যাপারে মৌনতা রক্ষা করাই শ্রেয়।

ম্যাকডোনাল্ডের প্রতিষ্ঠাতা রে ক্রোককে একবার এক সাক্ষাতকারে জিজ্ঞাসা করা হয়েছিল, “মহাশয়, আপনি খুব ভাগ্যবান! আপনি তো রাতারাতি সফলতার স্বাদ পেয়েছেন!”
রে উত্তর দেন ” হ্যা, তা সত্যি। কিন্ত আপনি এটা জানেননা, সেই রাত কতটা লম্বা ছিল…।”

Continue reading “শক্তি, সাফল্য ও সিদ্ধান্ত”

একান্ত ভাবনা

সঠিক সময়ে প্রশিক্ষণ ও চাণক্যের উপদেশ

Chanakya_artistic_depictionকোন এক বাবা একদিন এক শিশু বিশেষজ্ঞকে জিজ্ঞেস করলেন, ” মহাশয় আমার ছেলের বয়স আট বছর, আমি কবে থেকে তাকে জীবনের মূল্যায়ন শেখাবার জন্য প্রস্তুত হতে পারি? “।
বিশেষজ্ঞ বললেন
“আজ থেকেই শুরু করে দিন, আপনি এর মধ্যে আট বছর দেরী করে ফেলেছেন”

ব্যবস্থাপনা পাঠের গুরুত্ব উপলব্ধি করে মহামতি চাণক্য-ও ছাত্র শিক্ষকদের উপদেশ দিয়েছেন–

Continue reading “সঠিক সময়ে প্রশিক্ষণ ও চাণক্যের উপদেশ”

একান্ত ভাবনা

ইদ, ইগো আর সুপার ইগো

egoমন রহস্যময়, আর এই রহস্যময় মনের ভিতর থাকে ইদ, ইগো আর অল্টার ইগোর অবস্থান।
ইদ বলতে সহজাত প্রবৃত্তিকে বুঝানো হয়, তবে এর মধ্যে নানা কুপ্রবৃত্তিও থাকে যেমনঃ লোভ, কাম, ক্রোধ হিংসা ইত্যাদি। ইদ এই প্রবৃত্তিগুলোকে চরিতার্থ করে আত্মতৃপ্তি পেতে চায়। এই ইদ কোন নীতি মানেনা আর তার চিন্তা ভাবনাও এলোমেলো — মূলত এই এলোমেলো চিন্তাগুলোকে একত্রিত করে বাস্তবের সাথে মিলিয়ে চরিতার্থ করাই হল ইগো।
যেমন ধরা যাক ষড় রিপুর মধ্যে অন্যতম লোভের কথা, এটি ইদের অংশ। তো দোকানে গিয়ে যদি রসগোল্লা দেখে খাওয়ার লোভ হয়, তাহলে যাদের মনে ইদের প্রভাব বেশী,তারা চুরি করে রসগোল্লা খেতে চাইবে, আর যাদের মনে ইদের চেয়ে ইগো শক্তিশালী, তারা চাইবে উপার্জন করে সেই মিস্টি বা রসগোল্লা কিনতে ।

Continue reading “ইদ, ইগো আর সুপার ইগো”