একান্ত ভাবনা

পাঁচালি কথন


ekanto-vabnaআমার বাবা নিরাকার একেশ্বরবাদী, আর আমার ক্ষেত্রে ধর্ম ব্যাপারটা ধোয়াশায় ভরা– মনের যুক্তির অংশের কারণে। অনেক প্রশ্নের উদ্ভব হয় যা খুঁজে পাইনা। আমার মস্তিষ্ক ও এই ব্যাপারটা নিয়ে ভাবতে উৎসাহিত করেনা। তবে প্রকৃতি নামক এই অপারেটিং সিস্টেমটি আমাকে সবসময় আকর্ষণ করে। মস্তিষ্ক নামক সুপার কম্পিউটারের সাথে এই অপারেটিং সিস্টেমের কোন কানেকশন আছে কিনা তা জনতে ইচ্ছে করে।

অর্ধাঙ্গীর সাথে কথা হচ্ছিল লক্ষ্মীর পাঁচালি নিয়ে, মা লক্ষ্মীর পাঁচালি বিশ্বাস সহকারে পড়লে নাকি ধন প্রাপ্তি হয়, সংশারে শান্তি আসে। কম সময়ে ধন আর শান্তি লাভের খুবই এট্রাক্টিভ একটা অফার, ভাবলাম একটু পড়েই দেখি কি আছে এতে।

অবন্তীনগরের প্রধান ধনেশ্বর রায়, কুবেরের সমান তার ধন, স্ত্রী আর সাত পুত্র নিয়ে তিনি সুখে-শান্তিতে দিনাতিপাত করেন। যথাসময়ে তিনি ইহলোক ত্যাগ করলে তার পুত্রবধূদের কূটকৌশলের কারণে সাত ভাই আলাদা হয়ে যায় আর সংসারে অশান্তি নেমে আসে আর ধনক্ষয় হয়। পুত্রবধূরা পরে তাদের শ্বাশুড়িকে ঘর থেকে বিতাড়িত করে।পথমধ্যে লক্ষ্মীদেবী সেই শাশুড়িকে দেখা দিয়ে তাকে ঘরে ফিরে গিয়ে বধূদের সাথে একসাথে তাঁর ব্রত পালন করতে উপদেশ দেন। যাইহোক, শ্বাশুড়ি পুনরায় বাড়ি ফিরে বউদের সাথে একসাথে ব্রত পালন করলেন আর সংশার পুরনায় ধনসম্পদে পরিপূর্ণ হলো আর শান্তিও ফিরে এলো—

ভালো লাগলো পড়ে, কিন্তু কিছু খটকা রয়েই গেল, যেমন–

পাঁচালির কোথাও বলা হয়নি ধনেশ্বর রায় নিজে লক্ষ্মী পূজো করতেন তাহলে কি দাঁড়ায়? সেই ভদ্রলোকের কন্ট্রোলিং পাওয়ার আর বুদ্ধি বেশ ভালই ছিল, যার কারণে তাঁর জীবদ্দশায় কেও অশান্তি সৃষ্টি করতে পারেনি আর ধনও ক্ষয়প্রাপ্ত হয়নি।
অর্থাৎ লক্ষ্মী কার বশীভূত হবে তা ফুললি ডিপেন্ড করেছে ধনেশ্বরের বুদ্ধি, চেষ্টা আর কৃতকর্মের উপর। ধনেশ্বরের স্ত্রীর সেই কন্ট্রোলিং পাওয়ার বা বুদ্ধি ছিলনা যার কারণে তাকে বিপদে পড়তে হয়েছে সেই সাথে পরিবারের ধনক্ষয় ও হয়েছে, অর্থাৎ ধনেশ্বরের ছেলেগুলো কতটুকু পিতার বুদ্ধিমত্তা আর কন্ট্রোলিং পাওয়ার জন্মসূত্রে ইনহেরিট করেছিল তা সন্দেহজনক।

যাইহোক, বিশ্বাস আর যুক্তি দুটি ভিন্ন ধারা, আমরা প্রার্থনা করি, কিন্তু কি প্রার্থনা করছি বা কি পড়ছি তাই বুঝিনা।

যে যাই বলুক, দেবী লক্ষ্মীর চেয়ে ধনেশ্বরের ব্যাপারটিই আমাকে আকৃষ্ট করেছে বেশী— ইন্টেলিজেন্স, পেশেন্স ,পাওয়ার আর ওয়েলথ— প্রকৃত পুরুষ হতে আর কি লাগে??

একান্ত ভাবনা

সব-ই তার ইচ্ছে


ekanto-vabna“দর্শন” আর “যুক্তি” এই দুটি বিষয় আমাকে সবসময় আকর্ষণ করে। যখন আমার ভাবনায় যুক্তির চেয়ে যখন আবেগ যখন বেশী প্রভাবশালী হয় তখন এক অদ্ভুত পরিস্থিতির শিকার হই আমি, যুক্তি চাই আবেগকে দমাতে আর আবেগ চাই যুক্তিকে পরাস্থ করতে — এক নিশ্চল, সিদ্ধান্তহীন অবস্থা। যাই হোক, এক ভদ্রলোকের লেখা পড়ছিলাম, আমার মনে মনে (যুক্তির জায়গা থেকে) উচ্চারিত হওয়া কিছু কথার প্রতিচ্ছবি দেখলাম (নিম্নে দিলাম)

Continue reading “সব-ই তার ইচ্ছে”

একান্ত ভাবনা

জীবনের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য


ekanto-vabnaস্কুল পড়ুয়াদের যদি জিজ্ঞেস করা হয় যে তোমাদের জীবনের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্যকি?

৯৯% ই হয়তো বলবে ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার, উকিল, পাইলট ইত্যাদির কথা। আমি ও বলতাম একসময়।

ইউনিভার্সিটি পড়ুয়া আমার কয়েকজন ভাইকে একই প্রশ্ন জিজ্ঞেস করেছিলাম— তাদের উত্তর ছিল গ্রামীন ফোন, বাংলাদেশ ব্যাংক , বিসিএস ইত্যাদি।

বিবাহিত যারা তাদের উত্তর ছিল “ছেলে মেয়েকে মানুষ করা, লেখাপড়া শিখানো ও সমাজে প্রতিষ্ঠা করানো”

ভাবছিলাম আমাদের জীবনের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য কি ক্যারিয়ার ওরিয়েন্টেড হয়ে যাচ্ছে না তো? সোস্যাল সিকিউরিটির অভাব আমাদের গ্রাস করছে নাতো?

Continue reading “জীবনের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য”

একান্ত ভাবনা, Uncategorized

শিম্পাঞ্জী, মানব শিশু ও নেকড়ে মানবী


ekanto-vabnaমানুষের নিকটতম আত্মীয় হলো শিম্পাঞ্জী, তো একটি শিম্পাঞ্জীর বাচ্চাকে যদি মানুষের মত লালন পালন করা হয় তো কেমন হবে? সোভিয়েত পশু-মনোবিদ ন ন লাদিগিনা-কতস একটি পরীক্ষা করেছিলেন, তিনি ইয়োনি নামের একটি শিম্পাঞ্জীর বাচ্চাকে দেড় বছর বয়স থেকে চার বছর বয়স অবধি মানব শিশুর মত-ই করে লালন পালন করে তাঁর কার্যকলাপ বা পরিবর্তন ডায়েরিতে লিপিবদ্ধ করেছিলেন। তিনি ইয়োনিকে মানবশিশুর মত করেই খেলনা, জিনিসপত্র আর সম্পূর্ণ স্বাধীনতার দিবার পাশাপাশি জিনিসপত্র গুলো ব্যবহার শিখানো ও মুখের কথার দ্বারা সেগুলোর মধ্যকার সম্পর্ক স্থাপনের ব্যপারে চেষ্টা করেন।

Continue reading “শিম্পাঞ্জী, মানব শিশু ও নেকড়ে মানবী”

একান্ত ভাবনা

দৃষ্টিভঙ্গি — মানসিকতা


ekanto-vabna১ম ঘটনাঃ

গিয়েছিলাম বাংলাদেশ ব্যাংকের চট্রগ্রাম অফিসে ট্রেনিং পারপাসে। জিএম মহোদয়ার সাথে আমার সিনিয়র স্যার কথা বলছিলেন। অফিসিয়াল কথাবার্তার ফাঁকে ম্যাডাম তার লাইফের একটি ঘটনা শেয়ার করলেন, বললেন, তিনি আশির দশকে যখন বাংলাদেশ ব্যাংকে জয়েন করেন তখন তাঁর আব্বা তাঁর সাথে প্রায় ৬ মাস কথা বলেননি, মেয়ে চাকরী করবে তা ম্যাডামের আব্বার চিন্তা ভাবনার বাইরে ছিল।

Continue reading “দৃষ্টিভঙ্গি — মানসিকতা”

একান্ত ভাবনা

জাপানি শিশু ও আমাদের শিশুরা


ekanto-vabnaশার্পনার দিয়ে পেন্সিল শার্প করে অথবা রাবার দিয়ে খাতা পরিস্কার করে রাবার বা পেন্সিলের উচ্ছিষ্ট ময়লা কত হাজারবার যে ক্লাস রুমেই ফেলেছি তার ইয়াত্তা নেই। সব ছেলেপুলেরা ফেলতো, আমিও ফেলেছি। এটি যে অনুচিত তা স্কুলে কেও কখনো বলে দিয়েছে বলে মনে পরেনা। পরিবার থেকেও কখনো একথা বলে নাই (অন্তত আমার ক্ষেত্রে)।

Continue reading “জাপানি শিশু ও আমাদের শিশুরা”

একান্ত ভাবনা

সঞ্চিত অর্থ ও সাজিয়ে রাখার জন্য বই কেনা


ekanto-vabnaব্যাঙ্কে আপনার অঢেল টাকা আছে, প্ল্যান আছে একটি ফ্ল্যাট বা জমি কেনা অথবা আপনি টাকা জমাচ্ছেন ভবিষ্যতের কথা ভেবে…… সাধারণত আমরা এভাবেই চিন্তা করে অভ্যস্ত।

আপনি কি বই পড়েন? ধরে নিচ্ছি আপনি বই পড়েন না, কিন্তু তারপর ও আমরা যদি আমাদের সঞ্চয়ের কিছু অংশ বই কেনার পেছনে ইনভেস্ট করি শুধুমাত্র সাজিয়ে রাখার জন্য তাহলেও আপনি সমাজের জন্য একটা বড় উপকার করছেন। কিভাবে?
আপনার জেনারেশন, অথবা আপনার বাড়িতে বেড়াতে কোন অতিথি আপনার সাজিয়ে রাখা বইগুলো দেখে উৎসাহিত হতে পারে বইটি পড়ার জন্য, বইয়ের বিষয়বস্তু সম্পর্কে জানার জন্য।

Continue reading “সঞ্চিত অর্থ ও সাজিয়ে রাখার জন্য বই কেনা”

একান্ত ভাবনা

Think Out Of The Box বা একটু ভিন্ন ভাবে চিন্তা করা


ekanto-vabna“Think Out Of The Box.” বলে ইংরেজীতে একটি কথা আছে, সোজা বাংলায় যার মানে হলো “একটু ভিন্ন ভাবে চিন্তা করা”। একটু ব্যাখ্যা করি ব্যাপারটা, বাংলাদেশ ব্যাংকের সামনে শামীম ভাইয়ের ছোট চায়ের দোকান, সাধারণত চায়ের দোকান গুলোতে দুধ চা আর লিকার (রঙ চা) বিক্রি হয় ( অন্যান্য দ্রব্যের কথা উল্লেখ করছিনা)। কিন্তু শামীম ভাইয়ের চা’এর দোকানটি একটু Different । কেন?

Continue reading “Think Out Of The Box বা একটু ভিন্ন ভাবে চিন্তা করা”

একান্ত ভাবনা

ভদ্রতা, কার্টেসী ও দৃষ্টিভঙ্গী


ekanto-vabnaভদ্রতা, কার্টেসী ইত্যাদির সংজ্ঞা আমার জানা নেই, কিন্তু এতটুকু বুঝতে পারি আপনার ব্যবহার দ্বারা আপনি শুধু আপনাকেই রিপ্রেজেন্ট করছেন না, আপনার বাবা-মা, আপনার বংশ এই সব কিছুকেই রিপ্রেজেন্ট করছেন।
২০০৬ সালে রিডার্স ডাইজেস্ট “গ্লোবাল কার্টেসী ” নিয়ে একটি সমীক্ষা চালিয়েছিল,তারা মাপকাঠি হিসেবে যে ব্যপারগুলো ব্যবহার করেছিল তা নিম্নে দিলাম

Continue reading “ভদ্রতা, কার্টেসী ও দৃষ্টিভঙ্গী”

একান্ত ভাবনা

পানি ট্যাক্স ও আন-এথিক্যাল প্র্যাকটিস


ekanto-vabna“ভাই কোন আইটেমের কত দাম?” এই প্রশ্নটি যারা হোটেলে খান তাদের ৯৫% -ই বেয়ারাদের জিজ্ঞেস করেন বলে মনে হয়না ।

আর এই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে হোটেল্গুলো খাবারের দামের সাথে অতিরিক্ত ২টাকা করে পানির দাম আদায় করছে যা আপনি খেয়ালও করছেন না। আপনি পানি খান কিংবা না খান, আপনার এই অজ্ঞতার সুযোগ কাজে লাগানো হচ্ছে। যখন বলি “আমি তো পানি খাইনি” তখন তারা সেই টাকা বাদ দিচ্ছে।

Continue reading “পানি ট্যাক্স ও আন-এথিক্যাল প্র্যাকটিস”