একান্ত ভাবনা

প্রজ্ঞা, আদর্শ, ভক্তি ও সততা


proggaপ্রজ্ঞাহীন অতি ভক্তি, সততা আর আদর্শ “সততা রোগ”, “আদর্শ রোগ” আর “ভক্তিরোগ” সৃষ্টি করে। আমরা এই রোগগুলোতে আক্রান্ত যা ভয়াবহ। “কেন?”,”কেন?” আর “কেন?” —– আমাদের শিক্ষা যতদিন ছোটবেলা হতে মনের মধ্যে অনুসন্ধিৎসু এই “কেন?” প্রশ্ন জাগাতে না পারছে ততদিন বুদ্ধির মুক্তি বা প্রজ্ঞার বিকাশ অসম্ভব।
উদ্ভট উটের পিঠে চলছে স্বদেশ।

একান্ত ভাবনা

কৌটিল্য/চাণক্যের নীতিশাস্ত্র-৬


chanakya_artistic_depictionপর্ব-৫
**দারিদ্র্য, অসুস্থতা, দুঃখবোধ,কারারুদ্ধতা এবং অন্যান্য পাপ উৎপন্ন হয় নিজের কৃত পাপ বৃক্ষ থেকে

**মানুষেরা তাদের প্রয়োজন মোতাবেক ফল চয়ন করে, প্রজ্ঞাবানেরা তাদের প্রয়োজনীয় নির্যাস গ্রহণ করে পূর্ববর্তীদের সম্পাদিত কার্যকলাপের আলোকে, এমনকি প্রজ্ঞাবানেরা পরিবেশ পরিস্থিতি অবলোকনান্তে পদক্ষেপ গ্রহণ করে থাকে।

**যদি নিজ কৃতকর্মের দ্বারা এ ধরিত্রীতে যথার্থ ভূমিকা পালন করতে চাও তা হলে; পঞ্চইন্দ্রিয় তথা- দৃষ্টি, গন্ধ, শব্দ, স্বাদ এবং স্পর্শ –পঞ্চঅঙ্গ তথা-কান,চোখ,নাক, কন্ঠ এবং ত্বক। চলমান অঙ্গ তথা- হাত, চরণ, মুখ, সঙ্গমাদি এবং শিশ্ন তথা এই পনেরটি অনুসঙ্গের উপর নিজের নিয়ন্ত্রণ আরোপ কর।

Continue reading “কৌটিল্য/চাণক্যের নীতিশাস্ত্র-৬”

একান্ত ভাবনা

কৌটিল্যের/চাণক্যের নীতিশাস্ত্র-৫


chanakya_artistic_depictionপর্ব-৪
** যা বিগত হয়েছে তা নিয়ে আমাদের চিন্তা করা উচিৎ নয়। ভবিষ্যৎ নিয়েও উদ্বিগ্ন হওয়া উচিৎ নয়। বোধ সম্পন্ন লোকেরা বর্তমান নিয়ে চিন্তা করেন।
** বলা হয়ে থাকে যে একজন সাধু যখন তার পরিবার সম্পর্কে জিজ্ঞাসিত হন, তখন ক্রমানুসারে জানান যে, সত্যবাদিতা আমার মাতা, আধ্যাত্মিক জ্ঞান হলো আমার পিতা, কল্যাণকর আচরণ হলো আমার ভ্রাতা, আমার বদান্যতা হলো বন্ধুবান্ধব, অভ্যন্তরীণ প্রশান্তি হলো আমার স্ত্রী এবং ক্ষমাশীলতা হলো আমার সন্তান; এই ছয়টি হলো আমার জ্ঞাতি গোষ্ঠী।
** আমাদের শরীর হলো পচনশীল। সম্পদও কোনোভাবেই চিরস্থায়ী নয় এবং মৃত্যু সবসময়ই কাছাকাছি থাকে। অতএব অতি শীঘ্র আমাদের নিজেদের মেধাভিত্তিক কাজে নিয়োজিত করা উচিৎ

Continue reading “কৌটিল্যের/চাণক্যের নীতিশাস্ত্র-৫”

একান্ত ভাবনা

কেইস স্টাডিঃ যখন জানবেন সামনে খুব খারাপ একটি সময়ের মুখোমুখি হতে যাচ্ছেন—কি করবেন?


ekanto-vabnaকেইস স্টাডিঃ যখন জানবেন সামনে খুব খারাপ একটি সময়ের মুখোমুখি হতে যাচ্ছেন—কি করবেন?
উত্তরঃ সৎ থাকুন ।
জনসন এন্ড জনসন কোম্পনী যে বিপজ্জনক ঘটনার মুখোমুখি হয়েছিল তা জানলে বুঝতে পারবেন।
১৯৮০ সালের দিকে শত্রুতাবশত জনসন এন্ড জনসন কোম্পানীর প্রস্তুতকৃত টাইলিনল ক্যাপসুলে বিষ মেশায় কোন এক আগন্তক। উদ্দেশ্য কোম্পনীকে বিপদে ফেলা। প্রস্ততকারক জনসন এন্ড জনসন এ ব্যাপারে গা বাঁচানোর কোন চেষ্টা করলোনা। ঘটনাটা যে ভয়ংকর সেটা তারা অবলীলায় স্বীকার করলেন। তাদের উর্ধতন কর্মকর্তারা টিভি ক্যামেরার সামনে দাড়ালেন।

Continue reading “কেইস স্টাডিঃ যখন জানবেন সামনে খুব খারাপ একটি সময়ের মুখোমুখি হতে যাচ্ছেন—কি করবেন?”

একান্ত ভাবনা

ছোটদের কথা-২


ekanto-vabnaছেলেটির বয়স কতই বা হবে ৫ কি ৬।সাথে তার ছোট বোন। আমাদের বাসায় বেড়াতে এসেছে তার আব্বা আম্মার সাথে। আমি ল্যাপটপে কাজ করছিলাম। সে আর তার ছোট বোন খুব কৌতুহলী চোখে আমার ল্যাপটপটিকে দেখছে। বাচ্চাদের মধ্যে এই কৌতূহল আমার বেশ লাগে। জানার কৌতূহল থেকে জাগে জিজ্ঞাসা, জিজ্ঞাসা থেকে আসে চিন্তা, চিন্তা থেকে বাড়ে জ্ঞান, জ্ঞান থেকে বাড়ে প্রজ্ঞা বা উপলব্ধি।

Continue reading “ছোটদের কথা-২”

একান্ত ভাবনা

কৌটিল্য/চাণক্যের নীতিশাস্ত্র-৪


chanakya_artistic_depiction৩য় পর্ব
** দরিদ্র পরিবারে/নীচ কুলে জন্মগ্রহন করেও যদি কেউ শিক্ষা গ্রহণে সক্ষম হয় তাহলে সে সম্মানিত হতে পারে এমনকি দেবতার আসনেও আসীন হতে পারে।

**একজন সুশিক্ষিত ব্যক্তি জনগণের দ্বারা সম্মানিত হয়ে থাকেন। সুশিক্ষার কারণে একজন শিক্ষিত মানুষের নির্দেশনা সর্বত্র সমাদৃত হয়ে থাকে। বস্তত শিক্ষা সর্বত্রই সমাদর লাভ করে।

** সকল ধরনের বৈষয়িক সুখের মধ্যে সুস্বাদু খাদ্যই সর্বোৎকৃষ্ট। শরীরের সমস্ত অঙ্গ প্রত্যঙ্গের মধ্যে চোখই হলো সর্বশ্রেষ্ঠ আর শরীরের সমস্ত অংশের মধ্যে সেরা আসনটি দখল করে আছে মস্তিষ্ক।

Continue reading “কৌটিল্য/চাণক্যের নীতিশাস্ত্র-৪”

একান্ত ভাবনা

ছোটদের কথা


ekanto-vabnaরোজকার মতো সন্ধ্যা ৬.৩৫ দিকে বাস আমাদের নামিয়ে দিল। বাস থেকে নেমে আমার রুমের দিকে যাচ্ছি। খেয়াল করলাম একটি বাচ্চা ছেলে (বয়স ৮ কি ১০ হবে) খেলাচ্ছলে পাথর কুড়িয়ে নিয়ে একটি কুকুরকে সেটি মারছে। প্রথমটা গায়ে লাগেনি, কিন্ত অবস্থা বুঝে কুকুরটি দৌড়ে দূরে সরে গেল। আমি ছেলেটিকে খেয়াল করছিলাম, আশেপাশে বয়স্ক যারা আছেন তাদেরও দেখলাম, কেও কিছু বলছেনা।

Continue reading “ছোটদের কথা”

একান্ত ভাবনা

কৌটিল্য/চাণক্যের নীতিশাস্ত্র-৩


chanakya_artistic_depiction২য় পর্ব
** স্বর্ণের শুদ্ধতা যেমন ঘষামাজা, কাটাকাটি, উত্তপ্ততা এবং আঘাতের মাধ্যমে অর্থাৎ এই চারটি পদ্ধতিতে পরীক্ষা করা যায়, তেমনি একজন মানুষকেও শুদ্ধাচারণ, ব্যবহার, গুণাগুণ এবং কার্যকলাপ; এই চারটি পদ্ধতিতে পরিমাপ বা পরীক্ষা করা উচিৎ

** যে ব্যক্তি স্বর্গের পথে যেতে চায় তার জন্য প্রয়োজন হলো; কথার পবিত্রতা, মনের পরিশুদ্ধতা, ভাবনার শুদ্ধতা এবং একটি সংবেদনশীল হৃদয়।

** নিম্ন শ্রেণির লোকেরা প্রত্যাশা করে সম্পদ। মধ্যবিত্তেরা সম্পদ এবং সম্মান দুটোই প্রত্যাশা করেন। কিন্ত সম্ভ্রান্ত লোকেরা শুধু সম্মানই প্রত্যাশা করেন। বস্তত সম্মান, মর্যাদাই হলো সম্ভ্রান্ত মানুষের সম্পদ।

Continue reading “কৌটিল্য/চাণক্যের নীতিশাস্ত্র-৩”

একান্ত ভাবনা

কৌটিল্য/চাণক্যের নীতিশাস্ত্র-২


chanakya_artistic_depictionপ্রথম পর্ব
** একজন মানুষের আচার আচরণ দেখে তার অধঃপতিত অবস্থান উপলব্ধি করা যায়। দেশ সম্পর্কে তার মনোভাব জানা যায় ভাষাগত উচ্চারণে। বন্ধুত্ব পরিমাপ করা যায় আবেগ ও আন্তরিকতার নিরিখে এবং কারো খাদ্য গ্রহনের সক্ষমতা নিরপণ করা যায় শরীর দেখে।

** কোনো কাজের বিষয়ে তুমি যা ভেবে রেখেছ তা প্রকাশ করবে না। সারগর্ভ পরামর্শ থাকলেও বিষয়টি গোপন রেখে বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে নিজেই প্রয়োগ করবে

** এমনকি যদি বিষের মধ্য থেকেও মধু আহরণ করতে হয়, তবে তাই করো। স্বর্ণ যদি আবর্জনা বা বিষ্ঠাতে নিপতিত হয় তবে সেখান থেকে উঠিয়ে ধুয়ে মুছে ব্যবহার যোগ্য করে নাও। অনুরূপভাবে যদি নীচু শ্রেনীতে জন্মগ্রহনকারীদের কাছেও সর্বোচ্চ বিদ্যার্জন করতে হয়, তবে তাই করো এবং বিতর্কিত পরিবারে জন্মগ্রহণকারী কোন নারীর কাছ থেকে জ্ঞান-গরিমা অর্জন করতে হয়, তবে তাও নিঃসঙ্কচিত্তে করতে পারো।

Continue reading “কৌটিল্য/চাণক্যের নীতিশাস্ত্র-২”

একান্ত ভাবনা

শিক্ষা ও মর্যাদা


ছোটবেলা হইতে পিতা মাতার কাছ হইতে “লেখাপড়া করে যে গাড়ি ঘোড়া চড়ে সে” শুনিয়া শুনিয়া আমার মস্তিষ্ক নামক বস্তুটিতে লেখাপড়া না করিলে যে আমি অর্থ উপার্জন করিতে পারিবনা আর তা না হইলে আমার যে গরীবের হাল হইবে তা ভালোই বুঝিয়াছিলাম।
বিবেক আর মর্যাদাবোধ আমার অল্পবিস্তর জাগ্রত হইয়াছে বাট তাহা অর্থের নিকট কিছুই নয়। গত প্রায় ২৪ বছর যাবত লেখাপড়া করিয়া ৪০ হাজার টাকা সেলারী পাইয়া আমি সন্তুষ্ট হইয়াছি। সামান্য সুযোগ সুবিধা বা অর্থ লাভের জন্য কিভাবে অন্যকে লেং মারিতে হয় তাহা আমার আয়ত্ত্ব হইতাছে। কলিগের নামে উপর মহলে মিথ্যা অভিযোগ জানাইতে শিখিয়াছি, কারণ উপরে উঠিতে হইলে তাহা একান্ত আবশ্যক।পাঁচ মিনিটের কাজ কিভাবে ৩০মিনিটে করিতে হয় তাহা আমার নখদর্পনে—সময়মত কাজ করিলে যে বস আরো কাজ চাপাইবেন। উপরি ইনকামের জন্য স্পীড মানি নিতে আমার বেশ লাগে, যখন স্পীড মানি হাতে আসে, খুব খুশি লাগে, মনে মনে ভাবি
হে পরমপূজনীয় পিতামাতা তোমাদের শিক্ষা আমি প্রোপারলি কাজে লাগাইতে পারিয়াছি। আমার জীবন সার্থক।

— যদি ভুল করিয়া না থাকি তাহলে মেজরিটি বাংগালীরা এমন-ই মনমানসিকতা ধারন ও লালন করেন।

যে জাতি/মানুষ টাকা পয়সার সাথে লেখাপড়ার সম্পর্ক শিশুকে শিক্ষা দেয় সেই জাতির / শিশুর মেরুদন্ড/মর্যাদাবোধ বিকশিত হবার কথা না।
যে জাতি জ্বীন,ভুত, বিড়াল, তেলাপোকার ভয় দেখিয়ে শিশুকে ঘুম পাড়ায়, আর যাহাই হোক সেই জাতি/শিশুর সাহসিকতা বিকাশ লাভ করেনা,অন্যায়ের প্রতিবাদ সে করিতে শিখেনা—