নীলদর্পণ নাটক এর টুকরো কথা


BCS Preparation১৭৭২ সালে ফারাসী অধিকৃত চন্দননগরে মঁসিয়ে লুই বোনার্দ শুরু করলেন নীল চাষ, নীলের তখন প্রচন্ড দাম, মণ ৩০ টাকা, লন্ডনের বাজারে ৩ থেকে ৪ গুণ বেশী দামে বিক্রি করা যায়, আর সাহেবরা চাষীদের দিচ্ছে মাত্র ৪টাকা করে।

Read more of this post

বিসিএস ও ব্যাংক জবের কিছু গুরুত্বপূর্ণ ম্যাথ পর্ব-৪


bcs math preparationম্যাথ রিলেটেড প্রথম আর ২য় পর্বের পোস্টে ঐকিক নিয়মের কিছু অংক শেয়ার করেছিলাম। আজ আরো কিছু অংক শেয়ার করছি।

Read more of this post

বিসিএস ও ব্যাংক জবের কিছু গুরুত্বপূর্ণ ম্যাথ পর্ব-৩


bcs math preparationম্যাথ রিলেটেড প্রথম আর ২য় পর্বের পোস্টে ঐকিক নিয়মের কিছু অংক শেয়ার করেছিলাম। আজ আরো কিছু অংক শেয়ার করছি।

Read more of this post

বিসিএস ও ব্যাংক জবের কিছু গুরুত্বপূর্ণ ম্যাথ পর্ব-২


bcs math preparationগতকাল বিসিএস ও ব্যাংক জব ম্যাথ-এর প্রথম পর্ব শেয়ার করেছিলাম। আজ বিসিএস বা ব্যাংক জবের জন্য প্রয়োজনীয় আরো কিছু অংক শেয়ার করলাম। যদিও ব্যাংক জবের অংকগুলো ইংরেজী ভার্সনেই বেশী আসে আশা রাখি সামনে ইংরেজী ভার্সনের অংক ও শেয়ার করতে পারবো।

Read more of this post

বিসিএস ও ব্যাংক জবের কিছু গুরুত্বপূর্ণ ম্যাথ পর্ব-১


BCS Math Preparationঅনেকেই আমাকে অনুরোধ করেছেন বিসিএস বা ব্যাংক জবের জন্য কিছু গুরুত্বপূর্ণ ম্যাথ (অংক) শেয়ার করার জন্য। আজ আমি ঐকিক নিয়মের কিছু অংক শেয়ার করলাম। আশা করি সামনে আরো গণিত শেয়ার করতে পারব।

Read more of this post

উইলিয়াম ক্যারী ও মৃত্যুঞ্জয় বিদ্যালঙ্কার


উইলিয়াম ক্যারীঃ ১৮০১ সালে যিনি ফোর্ট উইলিয়াম কলেজের বাংলা ও সংস্কৃত ভাষার অধ্যাপক হিসেবে যোগদিয়েছিলেন।

মৃত্যুঞ্জয় বিদ্যালঙ্কার : ফোর্ট উইলিয়াম কলেজের প্রথম হেড পণ্ডিত। একাধিক পাঠ্যপুস্তক রচয়িতা ও বাংলা গদ্যের প্রথম ‘সচেতন শিল্পী’ হিসেবে তাকে মনে করা হয়। সংস্কৃত পণ্ডিত হলেও কলেজের জন্য তিনি বাংলা লিখতে শুরু করেন। তাঁর উল্লেখযোগ্য গ্রন্থ হল বত্রিশ সিংহাসন (১৮০২), হিতোপদেশ (১৮০৮) ও রাজাবলী (১৮০৮)। মৃত্যুঞ্জয় ইংরেজি জানতেন না। সম্ভবত কলেজের ইংরেজি-জানা পণ্ডিতদের থেকে তিনি তাঁর বইয়ের উপাদান সংগ্রহ করেন।

তথ্য সূত্রঃ
১। উইকিপিডিয়া
২।কলকাতার প্রথমঃ পূর্ণেন্দু পত্রী
william-carey-mrittunjai-vidyalankar

বিসিএস ও ব্যাংক জবের কিছু গুরুত্বপূর্ন প্রশ্ন-উত্তর (কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স)


BCS Preparation
১। ২০১৫ সালে চাল রপ্তানীতে শীর্ষ দেশ – ভারত
২।২০১৫ সালে চাল আমদানিতে শীর্ষ দেশ—চীন
৩।২০১৫ সালে চাল উতপাদনে শীর্ষ — চীন।
৪। খাদ্যশস্য উৎপাদনে শীর্ষ দেশ- চীন
৫। খাদ্যশস্য উৎপাদনে বাংলাদেশের অবস্থান- ১০ম
৬।অস্ত্র রপ্তানিতে শীর্ষ দেশ – যুক্তরাষ্ট্র
৭। Mercer এর জরিপ অনুযায়ী, বিশ্বে সবচেয়ে বসবাস উপযোগী শহর কোনটি?- ভিয়েনা (অস্ট্রিয়া)
৮। Mercer এর জরিপ অনুযায়ী, বিশ্বে সবচেয়ে বসবাস অনুপযোগী শহর কোন- বাগদাদ(ইরাক)
৯। Mercer এর জরিপ অনুযায়ী, বসবাসের জন্য বিশ্বে ঢাকার অবস্থান – ২১৪ তম

Read more of this post

চাকরিজীবনে এধরনের ক্ষেত্রে হতাশ হবেননা


job-satisfaction১। প্রত্যাশিত চাকরি না পাওয়া
২। কয়েকদফা সিভি পাঠিয়েও ইন্টারভিউ কার্ড না পাওয়া
৩। চাকরির অতীত অভিজ্ঞতা না থাকা। আর চাকরি যোগাড় করতে না পারায় অভিজ্ঞতা অর্জন করতে না পারা।
৪। চাকরি নিয়োগের পরীক্ষার সর্বশেষ পর্যায়ে গিয়ে বাদ পড়া।
৫। চাকরি পেলেও বেতন কম পাওয়া
৬। বেতন বেশী হলেও কাজের ধরন পছন্দ না হওয়া
৭। সহকর্মীর চেয়ে ডিগ্রি বা প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষায় পিছিয়ে থাকা।
৮। উর্ধতন কর্তৃপক্ষের কাছে নিজেকে উপস্থাপন করতে না পারা।
৯। শিক্ষাগত জ্ঞান কর্মক্ষেত্রে কাজে লাগাতে না পারা।

Read more of this post

কুলীনকুল সর্বস্ব (বাংলার প্রথম সামাজিক নাটক)


Ram Narayan Tarkaratnaসন ১৮৫৩ সালের ৮ই নভেম্বর, বাংলাদেশের প্রথম সংবাদপত্ররঙ্গপুর বার্তাবহ” তে এক অদ্ভুত বিজ্ঞাপন প্রকাশিত হল।
বিজ্ঞাপনটি “নাটক চাই” -এর। ছয় মাসের মধ্যে একটি নাটক লিখতে হবে যার নাম হবে “কুলীনকুল সর্বস্ব“, ভাষা হবে গৌড়ীয়, স্বাদ হবে মনোহর, নাটক রচয়িতা পঞ্চাশ টাকা পুরস্কার পাবেন। যিনি পুরস্কার দিবেন তিনি হলেন রংপুরের কুন্ডী পরগণার জমিদার, সম্ভ্রান্ত রায়চৌধুরী পরিবারের শ্রী কালীচন্দ্র ।

ছমাস শেষ হতে না হতেই কালীচন্দ্রের হাতে একটি নাটক এসে পৌছাল। নাটকটি পড়ে তিনি খুবই মুগ্ধ হলেন। এরকম নাটক তো কেঊ কোনদিন লেখেনি এই দেশে, কে এই লেখক? নাম কি তার?? নাটকের সঙ্গের চিঠিতে লেখকের নাম লেখা ছিল —

Read more of this post

ধর্মঠাকুর


ধর্মঠাকুর dharmathakur বিসিএস বা সরকারী চাকুরীর জন্য যারা পড়াশোনা করছেন তারা “ধর্মঠাকুর” নামটির সাথে পরিচিত হবার কথা।
আমিও মূলত নামটি পেয়েছি মধ্যযুগের বাংলা সাহিত্য নিয়ে পড়াশুনা করার সময়। তাই এই ধর্মঠাকুর কে নিয়ে ঘাটাঘাটি করতে গিয়ে তার সম্পর্কিত কিছু ইনফর্মেশন পেয়ে গেলাম তাই তা সবার সাথে শেয়ার করছি।
ধর্মঠাকুর” বাংলার জনপদ সমাজে লৌকিক দেবতাদের মধ্যে সর্বাপেক্ষা পূজিত ও আলোচিত। মৃত্যুর দেবতা যমের মত ধর্মঠাকুর ও “ধর্মরাজ” নামে পরিচিত। বীরভূম জেলার ইটাগড়িয়া পল্লীর ও অপর দু এক স্থানে ধর্মঠাকুরের বিশেষ উৎসবে যমরাজের পট আনুষ্ঠানিক ভাবে মন্দিরে বিগ্রহের পাশে স্থাপন করা হয় ও যমরাজের মাহাত্ম ও গাওয়া হয়। তবে স্থানভেদে তিনি চাঁদ রায়, যাত্রাসিদ্ধি রায়, ক্ষুদি রায়, সুন্দর রায়, বাঁকা রায়, কালু রায়, বৃহদাক্ষ,মতিলাল, পুরন্দর নামেও পরিচিত।

Read more of this post

Follow

Get every new post delivered to your Inbox.

Join 1,151 other followers

%d bloggers like this: